উইন্ডোজ ১১ সিপিইউ রিকোয়ারমেন্ট পরিবর্তিত হয়েছে, ম্যাক সাপোর্ট এখনো অস্পষ্ট

উইন্ডোজ ১১ সিপিইউ রিকোয়ারমেন্ট পরিবর্তিত হয়েছে, ম্যাক সাপোর্ট এখনো অস্পষ্ট

মাইক্রোসফট এই বছরের শুরুতে উইন্ডোজ ১১ ঘোষণা করেছিল। উইন্ডোজ ১১ এ স্বাভাবিকভাবেই সিস্টেমের রিকোয়ারমেন্টের একটি সেট রয়েছে যা ব্যবহারকারীর পিসি তাদের সিস্টেমে উইন্ডোজ ১১ ইনস্টল করার জন্য পূরণ করতে হবে। এখন, মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ১১ সিপিইউ রিকোয়ারমেন্ট এর কিছু পরিবর্তন নিশ্চিত করেছে। উইন্ডোজ ১১ -এর জন্য ম্যাক সাপোর্ট এখনও স্পষ্ট নয়।

উইন্ডোজ ১১ সিপিইউ রিকোয়ারমেন্ট:

মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ১১ চালানোর জন্য একটি পিসির জন্য তিনটি প্রাথমিক রিকোয়ারমেন্ট নির্ধারণ করেছে। এগুলি হল – একটি ৬৪-বিট ১-গিগাহার্জ প্রসেসর বা দ্রুততর, কমপক্ষে ৪ জিবি র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি স্টোরেজ। এছাড়াও, কম্পিউটারের জন্য ডিরেক্টএক্স ১২ সামঞ্জস্যপূর্ণ গ্রাফিক্স এবং টি পি এম ২.০ এর জন্য সাপোর্ট প্রয়োজন।

মাইক্রোসফট যে পরিবর্তন ঘোষণা করেছে তা সিপিইউর রিকোয়ারমেন্টের সাথে সম্পর্কিত। প্রাথমিকভাবে, মাইক্রোসফট বলেছিল যে কেবলমাত্র ২০১৭ সালের পরে চালু করা প্রসেসরগুলিই উইন্ডোজ ১১ চালাতে পারবে, এই ধারনা কিছু গ্রাহকদের বিরক্ত করতে পারে যাদের এখনও পুরনো কিন্তু সক্ষম প্রসেসর রয়েছে।

মাইক্রোসফট এখন নিশ্চিত করেছে যে উইন্ডোজ ১১ একই রিকোয়ারমেন্ট সহ প্রকাশ করা হবে, কিন্তু সেটা হবে উপযুক্ত সিপিইউর প্রয়োজন ছাড়াই। এর মানে হল যে ৪ গিগাবাইট র‍্যাম এবং ৬৪ গিগাবাইট ফ্রি স্টোরেজ থাকলে যে কেউ যেকোন পিসিতে উইন্ডোজ ১১ ইনস্টল করার চেষ্টা করতে পারে, কিন্তু এটি কাজ করার নিশ্চয়তা দেয় না।

ম্যাক ব্যবহারকারীদের জন্য উইন্ডোজ ১১ সাপোর্ট করবে কিনা সেটা এখনো অস্পষ্ট রয়ে গেছে। এটি মূলত উইন্ডোজ ১১ এর বিশ্বস্ত প্ল্যাটফর্ম মডিউল রিকোয়ারমেন্টের টি পি এম ২.০ রিকোয়ারমেন্টের কারণে। টি পি এম ২.০ হল কম্পিউটারের লজিক বোর্ড বা ফার্মওয়্যারে নির্মিত একটি নিরাপত্তা স্তর। অ্যাপল কখনো কোনো ম্যাক কম্পিউটারের জন্য টিপিএম সাপোর্ট দেয়নি, তাই একটি আশঙ্কা আছে যে উইন্ডোজ ১১ ম্যাক -এ কাজ নাও করতে পারে।

ম্যাক উইন্ডোজ ১১ সিপিইউ রিকোয়ারমেন্ট

তা সত্ত্বেও, বেশ কিছু উত্সাহী ব্যবহারকারী অনলাইনে টি পি এম ২.০ এর রিকোয়ারমেন্টকে বাইপাস করার জন্য কিছু সিস্টেম ফাইল পরিবর্তন করে ম্যাক -এ উইন্ডোজ ১১ চালানোর উপায় বের করেছেন। কিন্তু এই সমাধানটি যে কোন সময় মাইক্রোসফট প্রত্যাহার করে নেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

ঢাকা মেট্রো রেল শুক্রবার পরীক্ষামূলক যাত্রা শুরু করেছে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here