জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের মতে পৃথিবী থেকে মাত্র কয়েক মাইল দূরে একটি চাঁদের টুকরো পৃথিবীর পাশাপাশি সূর্যকে প্রদক্ষিণ করছে

জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের মতে পৃথিবী থেকে মাত্র কয়েক মাইল দূরে চাঁদের টুকরো পৃথিবীর পাশাপাশি সূর্যকে প্রদক্ষিণ করছে

নতুন পর্যবেক্ষণ অনুসারে, গ্রহ থেকে মাত্র ৯ মাইল দূরে একটি চাঁদের টুকরো পৃথিবীর কক্ষপথ ট্র্যাকিং করছে। জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের মতে, প্রাচীন চন্দ্র সংঘর্ষের পর ধ্বংসাবশেষ মহাকাশে পতিত হয়েছিল।

গ্রহাণু কামো’আলেওয়া প্রায় একটি ফেরিস চাকা আকারের, কিন্তু খালি চোখে এটিকে ক্ষীণতম নক্ষত্রের চেয়ে অনেক বেশি ক্ষীণ মনে হয়। গ্রহাণুটি ২০১৬ সালে আবিষ্কৃত হয়েছিল, কিন্তু আজ পর্যন্ত এটি সম্পর্কে খুব কম তথ্য পাওয়া গিয়েছে। এটি বিস্তারিতভাবে পর্যবেক্ষণ করার জন্য, জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের অনেক শক্তিশালী টেলিস্কোপ প্রয়োজন ছিল। কামো’আলেওয়া একটি গ্রহের মতো একই কক্ষপথে সূর্যের চারপাশে ভ্রমণ করে। কামোওআলেওয়া সহ এরকম আরও পাঁচটি গ্রহাণু রয়েছে।

চাঁদের টুকরো সম্পর্কে জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা যা বলেছেন:

কক্ষপথে গ্রহাণুটির উৎক্ষেপণের কারণ অজানা, তবে গবেষকদের মতে সংঘর্ষের ঘটনাটি ৫০০ থেকে ১০০,০০০ বছর আগে ঘটেছিল।

কেন্ট ইউনিভার্সিটির একজন জ্যোতির্বিজ্ঞানী, অধ্যাপক স্টিফেন লোরি বলেছেন যে গবেষণাটি চূড়ান্ত নয় তবে গবেষক দল একটি শক্তিশালী যুক্তি উপস্থাপন করেছে যে কমোয়ালেওয়া এমন একটি সংঘর্ষের অংশ হতে পারে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গ্রাহাম পর্বতে অনেক বড় বাইনোকুলার টেলিস্কোপ ব্যবহার করে অ্যারিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বেঞ্জামিন শার্কি এবং বিষ্ণু রেড্ডি একটি গবেষক দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন কামোআলেওয়া থেকে প্রতিফলিত আলোর বর্ণালী বিশ্লেষণ করতে।

গবেষকরা আবিষ্কার করেছে যে প্রতিফলিত আলোর বর্ণালী নাসা এর অ্যাপোলো মিশন থেকে চন্দ্রের শিলাগুলির সাথে মিলেছে। এটি ইঙ্গিত দেয় যে গ্রহাণুটি চাঁদ থেকে উদ্ভূত হয়েছে। গবেষকরা নেচার কমিউনিকেশনস আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট জার্নালে তাদের ফলাফল প্রকাশ করেছেন।

রিয়েলমি ওয়াচ টি-১: এক চার্জে ব্যাটারি ৭ দিন পর্যন্ত চলবে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here