তাসনুভা অনান শিশির: বাংলাদেশের প্রথম ট্রান্সজেন্ডার সংবাদ উপস্থাপক

তাসনুভা অনান শিশির: বাংলাদেশের প্রথম হিজড়া সংবাদ উপস্থাপক

প্রতিভাবান মডেল, অভিনেতা, এবং সমাজকর্মী তাসনুভা অনান শিশির আন্তর্জাতিক মহিলা দিবসে, মার্চ 0৮ থেকে সংবাদ উপস্থাপক হিসাবে তার যাত্রা শুরু করবেন।

বাংলাদেশের একটি বেসরকারী স্যাটেলাইট চ্যানেল বৈশাখী টিভি দেশের প্রথম ট্রান্সজেন্ডার টিভি সংবাদ উপস্থাপক হিসেবে নিয়োগ করেছে।

এই বছরের শুরুর দিকে তাসনুভা ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের জেমস পি গ্রান্ট স্কুল অফ পাবলিক হেলথ (জেপিজিএসপিএইচ) এর মাস্টার অব পাবলিক হেলথ (এমপিএইচ) প্রোগ্রামে উচ্চতর পড়াশুনা করার জন্য দুটি বিভাগে তার বৃত্তি অর্জন করেন। দেশের আরেক পরিচিত ট্রান্সজেন্ডার হো চি মিন ইসলামও সেই বৃত্তি পান।

২০০৭ সালে তাসনুভা অনান শিশির নাটুয়া থিয়েটার গ্রুপ দিয়ে তার অভিনয় জীবন শুরু করেন। তিনি দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে বটটোলার থিয়েটার গ্রুপের অংশ হয়ে কাজ করেন এবং অনেক উল্লেখযোগ্য প্রযোজনায় হাজির হয়েছেন।

তাসনুভা অনান শিশির এই বছর দুটি পূর্ণদৈর্ঘ্য বাংলা চলচিত্র অভিনয়ের জন্যে নাম লিখিয়েছেন। তাঁকে আনন্ন্য মামুনের ছবি ‘কোশাই’ তে একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা হিসাবে এবং সৈয়দ শাহরিয়ার সিনেমা ‘লক্ষ্য’ যেখানে তাকে একজন ফুটবল কোচ হিসাবে দেখা যাবে।

ট্রান্সজেন্ডার বাংলাদেশে বৈষম্যের মুখোমুখি হয় এবং কর্মসংস্থান সন্ধানের জন্য অনেক সংগ্রাম করে।
কেউ কেউ অর্থ উপার্জনের জন্য ভিক্ষা, নাচ বা পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য হয়।

“আমি নিজের এবং আমার সম্প্রদায়ের জন্য কতটা অভিভূত তা প্রকাশ করতে পারছি না। আমার সম্প্রদায়ের ব্যক্তিরা দীর্ঘদিন ধরে হয়রানির শিকার হয়েছেন, এবং কেবল এ জাতীয় প্রকাশ সমাজে আমাদের মানুষের উন্নয়নের সুযোগ তৈরি করতে সহায়তা করে, ”বৈশাখী টিভিতে নিশ্চিত হওয়ার পরে শিশির এই কথা বলেন।

এর আগে তিনি ২০২০ সালের জুন থেকে ওবিবাশী কর্মী উন্নয়ন কর্মসূচীতে (ওসিইউইপি) কেস ম্যানেজমেন্ট অফিসার হিসাবে কাজ করেন, বন্ধু সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটিতে প্রজেক্ট অফিসার হিসাবে, এবং ভিভিন্ন সংস্থাসহ একটি নারীবাদী নেটওয়ার্ক, রূপবান সহ সংস্থাগুলিতে এর আগে অন্যান্য স্বেচ্ছাসেবী প্রকল্পেও কাজ করেন। ওবয়ব, বাংলাদেশ যুব নেতৃত্ব কেন্দ্র (বিওয়াইএলসি), এবং বাংলাদেশের জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের নির্বাহী কর্মকর্তা হিসাবে অন্যান্য বিষয়গুলির মধ্যে জড়িত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here